Category Archives: দিদি

অন্ধকার রাত


এই গল্পটা হোলো আজ থেকে আট বছর আগের। যখন আমি উনিশ বছরের ছিলাম। এখন আমি আঁটাশ এবং বিবাহিত। আমাদের নিজেদের বাড়ি ছিল কোলকাতায়। আর বাড়িতে আমরা যে কজন থাকতাম তারা হলো বাবা, মা, আমি, ভাই, পিসি এবং মাঝে মাঝে দিদি। আমার পিসি অফিস এ কাজ করে, কি জানি কি কারণে পিসি বিয়ে করেনি, তবে পিসি তখনো ৩২। তাই চাইলেই বিয়ে করতে পারতো। যাই হোক আসল ঘটনায় আসা যাক।

Continue reading অন্ধকার রাত

রবি ও মিলি


“আর কতক্ষন যেতে লাগবে বল তো?”, রবি ওর বোন মিলিকে জিজ্ঞেস করে, ওরা দুজনে ট্রেনে করে যাচ্ছে, রবি জানলা দিয়ে ঝাপসা হয়ে চলে যাওয়া প্রকৃতির দিকে তাকিয়ে তাকিয়ে প্রশ্নটা করে।
মিলি ওর ভাইয়ের দিকে তাকিয়ে দেখলো, ওর ভাই তো দিকে কে দিন আরও যেন পুরুষালী হয়ে উঠেছে , এক সুঠাম যুবাতে ক্রমে ক্রমে পরিণত হচ্ছে । ওর ভাই ওর থেকে কেবল মাত্র দেড় বছরের ছোট , এরই মধ্যে কত লম্বা হয়ে গেছে, স্বাস্থ্যও বেশ ভালো ওর ভাইয়ের । “না জানি ওর বাড়াটা কতই না বড় হবে ?” নিজের মনের খেয়ালে নিজেকেই প্রশ্নটা করে ফেলে লজ্জিত বোধ করে মিলি , এই হয়েছে এক জ্বালা কিছুদিন ধরে শরীরের কামনায় ওর মনটা ভরে যাচ্ছে ,এই বয়সে কি ওটা হওয়া খুবই স্বাভাবিক ? নিজের কৌমার্য বিসর্জন কিভাবে সে দেবে সে চিন্তাতেই সে মগ্ন । Continue reading রবি ও মিলি

ম্যাচের দিন (jj collection)


সকাল থেকেই মেঘলা করে আছে | বৃষ্টি হলে আজকে ক্রিকেট ম্যাচ টা ভেস্তে যাবে | শুয়ে শুয়ে এইসমস্তই ভাবছিলাম | দুটো থেকে ম্যাচ শুরু তাই বারোটার মধ্যে খাওয়া দাওয়া সেরে একটু বিশ্রাম নিচ্ছিলাম | রাহুলকে বলা আছে, আমাকে দেড়টার মধ্যে ডেকে নেওয়ার জন্য | রাহুল আমার বন্ধু ও আমাদের ক্লাবের ওপেনার ও বটে | লাস্ট ম্যাচে ও আর আমি জুটিতে পঁচাশি রান তুলে ম্যাচ জিতিয়েছিলাম | তারপর থেকেই আমাদের দারুন কদর বেড়ে গেছে | এইসব আবোল তাবোল ভাবতে ভাবতে কখন যে ঘুমিয়ে পরেছি জানিনা | ঘুম ভাঙ্গতেই ধড়মড় করে উঠে বসলাম | ঘড়ির দিকে তাকিয়ে দেখলাম দুটো বেজে পাঁচ | কোনরকমে চোখে মুখে জল দিয়ে নিচে নেমে মাকে জিজ্ঞাসা করলাম কেউ ডাকতে এসেছিল কিনা | আসেনি শুনে আরো অবাক হলাম | রাহুলটা এমন করলো কেন? সাইকেলটা কাল বিকেলে বিগড়েছে, সারানো হইনি | নিজের ওপর আরো রাগ ধরল | ওরা নিশ্চই বাইক নিয়ে এতক্ষণ মাঠে পৌঁছে গেছে | কোনক্রমে ব্যাট টা নেয়ে রাহুলের বাড়ির দিকে হাঁটা লাগলাম |

Continue reading ম্যাচের দিন (jj collection)

পারিবারিক প্রেমের ধারাবাহিক উপাখ্যান (collected-series)


কলকাতার একটা অভিজাত পরিবারের কাহিনী এটি। একটি সাদা বাড়ি,সঙ্গে একটা বাগান। বাড়ীর সামনে একটা পেল্লাই দরজা। বাড়ীর ছোট ছেলে জয় কলেজ থেকে দেরী করে বাড়ি ফিরেছে। স্নান করে নিয়ে ফ্রেশ হয়ে, গেঞ্জী আর পজামা পরে শুয়ে রয়েছে। জয় তার বাবা,মার সাথে থাকে। জয়ের আরেকজন দাদা আর এক দিদি আর একজন বোন আছে। বড় দিদি কাকলির বিয়ে হয়ে গেছে,ওর একটা ছোট ১৪ মাসের বাচ্চাও আছে। ছোট বোনের নাম মিতালী, ওর বয়স ১৮ সবে সে উচ্চ মাধ্যমিক দিয়েছে। ওর দাদা সুজয় সবে সবে চাকরীতে যোগ দিয়েছে।খাটে শুয়ে শুয়ে সে আজকের দিনের কথা ভাবছিল, আজকে সে আবার রাকেশের বাড়ী গিয়েছিল। সল্টলেকে ওদের একটা বাংলো বাড়ী আছে। একবার গাড়িতে করে বেড়াবার সময় রাকেশ জয়কে জিজ্ঞেস করে, “আমার মা কে তোর কিরকম মনে হয়?” কাকিমার সাথে এর আগে কয়েকবার মাত্র দেখা করেছিল জয়। রাকেশের উত্তরে সে বলে, “খুব ভাল, খুব মিষ্টি।”

Continue reading পারিবারিক প্রেমের ধারাবাহিক উপাখ্যান (collected-series)

শিহরন (download pdf)


——সুমী দেবী এবার লজ্জা পেলেন। শব্দটা এভাবে তার মুখ থেকে বের হয়ে যাবে তিনি ভাবতে পারেন নি।——

পুরো গল্প পড়ার জন্য নিচের লিঙ্ক এ গিয়ে ডাউনলোড করুন

Click here to download

Continue reading শিহরন (download pdf)

দিদি (download pdf)


——–আমার খালি সময়ে আমি ব্যাল্কনিতে দাঁড়িয়ে থাকতাম, আর আমার দিদি যখন আমার পাশে দাড়াত আমি আস্তে আস্তে তার মাই ছোবার চেষ্টা করতাম——

পুরো গল্প পড়ার জন্য নিচের লিঙ্ক এ গিয়ে ডাউনলোড করুন

Click here to download

Continue reading দিদি (download pdf)

প্রমাদি (download pdf)


——–মনের কোনেতে ভেজা গামছা পরা অবস্থায় প্রমাদির ছবি ভেসে উঠতেই চোখ চলে গেল সোজা তার বুকের দিকে——–

পুরো গল্প পড়ার জন্য নিচের লিঙ্ক এ গিয়ে ডাউনলোড করুন

Click here to download

Continue reading প্রমাদি (download pdf)

আমার পরিবার (download pdf)


——–অবশেষে সেই দিনটা এল। বাবা কাজে গেল, পিসি ও মা গেল মামার বাড়ি—–

পুরো গল্প পড়ার জন্য নিচের লিঙ্ক এ গিয়ে ডাউনলোড করুন

Click here to download

Continue reading আমার পরিবার (download pdf)